Friday, August-14, 2020, 08:31 AM
Breaking News
Home / সারাদেশ / চট্টগ্রামে এবার সপ্তম শ্রেণীর দীপা হলেন কুমারী মা

চট্টগ্রামে এবার সপ্তম শ্রেণীর দীপা হলেন কুমারী মা

কামরুল ইসলাম হৃদয়, ব্যুরো প্রধান, চট্টগ্রাম:চট্টগ্রামে পালিত হচ্ছে হিন্দু সম্প্রদায়ের মহাষ্টমী। বিপুল উৎসাহ আর উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে মহাষ্টমীর দিন কুমারী পূজা অনুষ্ঠিত হয়েছে। নারীকে সম্মান আর শ্রদ্ধা জানাতে আয়োজন করা হয় এই কুমারী পূজার।বুধবার চট্টগ্রামের পাথরঘাটার শ্যামল সাধু আশ্রমের শ্রী শ্রী শান্তনেশ্বরী মাতৃ মন্দিরে টানা ১১ বারের মতো পালিত হয়েছে কুমারী পূজা। এবছর চট্টগ্রামের আর কোথাও কুমারী পূজার আয়োজন করা হয়নি। ঐতিহ্যগতভাবেই প্রতিবারের মতো শ্যামল সাধুর মন্দিরে পালিত হলো এ পূজা।ভোর পাঁচটা থেকে আরম্ভ হয়েছে মহাষ্টমীর পূজা। সকাল এগারটায় শুরু হয় পূজার মূল আকষর্ণ পর্ব কুমারী পূজা।মাতৃভাবে কুমারী কন্যাকে জীবন্ত প্রতিমা কল্পনা করে জগজ্জননীর উদ্দেশ্যে শ্রদ্ধা নিবেদন করাই কুমারী পূজা। এবারের কুমারী পূজায় কুমারী মায়ের মর্যাদা পেয়েছে ত্রয়োদশবর্ষী মহালক্ষী দীপা চৌধুরী। কুমারী মায়ের মর্যাদা পাওয়ার জন্য উপযুক্ত কন্যাদের বয়স ভেদে তাদের একটি বিশেষণ দেওয়া হয়। দীপা চৌধুরীর বয়স ১৩ বলে মহালক্ষী।দীপা চৌধুরী পাথরঘাটা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণীর ছাত্রী। তার বাবা শিবু চৌধুরী চট্টগ্রামের একজন বিশিষ্ট ব্যবসায়ী। আর মা নিলু চৌধুরী গৃহিনী।বাবা শিবু চৌধুরী বলেন, মেয়ে দীপাকে কুমারী মা হিসেবে কুমারী পূজার সম্মান দেওয়ায় ওর মা আর আমি দুজনই অত্যন্ত আনন্দিত ও গর্বিত। ’শ্রী শ্রী শান্তনেশ্বরী মন্দিরের মুখপাত্র এ্যাডভোকেট সুব্রজিৎ বিশ্বাস জানান, আমাদের মন্দিরে গত ১১ বছর যাবত কুমারী মায়ের পূজা হযে আসছে। চট্টগ্রামের আর কোথাও করা না হলেও আমাদের মন্দিরে অবশ্যই করা হয়। এবারের পূজায় প্রচুর ভক্তের আগমন হয়েছে। তারা সবাই কুমারী পূজায় শামিল হতে পেরে দারুণ খুশি।চট্টগ্রাম মহানগর পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রত্নাকর দাশ টুনু বলেন, কুমারী পূজা পালনে অনেক আনুষ্ঠানিকতা করতে হয়। সব মন্দির বা পূজা মন্ডপে এ পূজা করা যায়না। আমরা মহানগরে অস্থায়ীভাবে অনেক অস্থায়ী পূজার আয়োজন করি ঠিকই। তবে এ পূজা কেবল প্রতিষ্ঠিত মন্দিরেই করতে পারে। তাই বরাবরের মতো এবারও শ্যামল সাধুর আশ্রমে পালিত হয়েছে কুমারী পূজা।তিনি জানান, কুমারী পূজার জন্য কুমারী মা নির্বাচনে কিছু আনুষ্ঠানিকতা আছে। যে কোনো কুমারী মেয়ের দ্বারা এ পূজা সম্ভব নয়। কখনো কখনো বংশ পরিক্রমায় এ কুমারী নির্বাচন করা হয়। শ্যামল সাধু মহন্ত মহারাজ একজন নামী ও প্রতিষ্ঠিত মন্দিরের পুরোহিত। তাঁর আনুক’ল্যে প্রতিবছর তার আশ্রমে এ পূজা করা হয়।চট্টগ্রামের শ্রী রামকৃষ্ণ মিশনের মন্দির কমিটির সদস্য স্বামী সুরবরা নন্দ বলেন,সেই পৌরাণিক সময় থেকেই কুমারী পূজা পালিত হয়ে আসছে। মায়ের জাতির প্রতি দৃষ্টিভঙ্গি পাল্টানোর জন্য কুমারী পূজা পালন করা হয়। মেয়েরা হলো মা দুর্গার জাত। তাই মেয়েদের প্রতি মানুষের ভুল-ভাল ধারণা তাড়ানোর জন্য আর মেয়েদের মধ্যে মাতৃভাবটা আনার জন্যই এ পূজা।সকাল থেকে শ্রী শ্রী শান্তনেশ্বরী মন্দিরের পূজামন্ডপে দেবী দর্শনের জন্য দর্শনার্থীদের ভিড় ছিল প্রায় বাঁধভাঙা। সন্ধ্যায় এখানেসহ পুরো চট্টগ্রামের সব পূজামন্ডপে আয়োজিত হবে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। আর আলোকসজ্জায় আলোকিত হবে সব মন্ডপ।

Check Also

ঈদে ভারত থেকে গরু আনবে না বাংলাদেশ

এ বছর ঈদুল আযহায় কোরবানির পশুর বাড়তি চাহিদা মেটাতে ভারত থেকে গরু আনবে না বাংলাদেশ। …

‘খয়রাতি’ শব্দ ব্যবহারে ক্ষমা চেয়েছে আনন্দবাজার পত্রিকা

কলকাতার দৈনিক আনন্দবাজার পত্রিকা একটি প্রতিবেদনে ‘খয়রাতি’ শব্দ ব্যবহার করার জন্য ক্ষমা চেয়েছে। মঙ্গলবারের (২৩ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *